ভাবির কাছ থেকে সেক্সের জ্ঞান অর্জন

                         
প্রথম যখন আমার মাঝে যৌবন আসল আমি বুঝতে পারি নি। কারণ আমার কোন বন্ধু বান্ধব ছিলনা। বাড়ীর চার দেয়ালের মাঝেই বসবাস করতাম। ডাক্তারে বলেছিল আমার শারীরিক সমস্যার কারণে যৌবন দেরিতে আসতে পারে পরে জানতে পারি। বয়স ১৮ চলছে আরকি? যাই হোক, আমি সেসময় বুঝতাম না শারিরিক সম্পর্ক আসলে কি? আমার এখনো ষ্পষ্ট মনে আছে, প্রথম বড় ভাইয়ের কম্পিউটারে একটা ছোট্ট ভিডিও কিপ দেখেছিলাম? দেখ লাম এক মেয়ের অন্য একটা ছেলের পেনিস (ধন) টাকে নিয়ে একবার চুষছে, আমার মাঝে মাঝে হাত দিয়ে জোরে জোরে হ্যাডল মারছে। পরে ধন থেকে ছিঁটে ছিঁটে কি যেন বেড়ল। এই সিনটা দেখার পর আমি অনেকটা উত্তেজিত হয়ে উঠেছিলাম। কেন এরকম হলো বুঝতে পারলাম না। ছ্টো কাল থেকেই আমি রাতে আলাদা ঘরে থাকি? রাতে সিটার কথা চিন্তা করতে করতে আমার লাঠিটা (ধন) জিনিসটা খাঁড়া হয়ে উঠল, মনে হয় প্যাট ছিঁড়ে বের হয়ে আসবে। নিজের অজান্তে আমি হাত দিয়ে খেঁচতে লাগলাম। খুব মজা পাচ্ছিলাম। তারপর আমার বালিশটাকে জড়িয়ে ধরে দেখি তাও খুব ভালো লাগছে,বালিশটার উপরই ধনটাকে ঘুষতে লাগলাম। খুব ভালো লাগছিল আরো জোরে জোরে ঘোষছিলাম এক পর্যায়ে আমার ধনটার কি যেন বেরিয়ে আসতে চাইছিল আমি সামলাতে পারছিলাম না। মনে মনে ভয় পেলাম পেসাব করে দিলাম না তো। ভয়ে ভয়ে উঠে দেখি, আমার দেখা ভিডিও সিনটার মতো আমার নুনু দিয়ে কিছু বেড়িয়েছে। খুব মজাও পেলাম। একটা অজানা আতঙ্কের মধ্যে, আমি সবকিছু পরিষ্কার করে ঘুমিয়ে পড়ি?
যাইহোক মূল গল্পে আসার যাক, আমার পরিবারে আমারা ৫জন সদস্য বড়ভাই আমার তিন বছরের বড়? কিন্তু বিবাহিত ভাবি কে দিয়ে মোট ৫জন । তখন ভাইয়ের বিয়ের মাত্র সাতমাস হয়েছে। বিয়ের তিনমাস পর কোরিয়া চলেযায়। ভাবির বয়স মাত্র ১৮। .কিছু দিনেই আমাদের মাঝে ভালো বন্ধুত্ব হয়ে যায়। আমাকে ভাবি সবসময় বলতো যে তুমি আসলেই খুব বোকা। যাইহোক রাতের ঘটনার পর সকালে ঘুম থেকে উঠতে আমার দেরি হয়। ভাবি আমার রুমে উঠাতে যেয়ে বালিলে রাতের কু-কাজ করার দাগ দেখতে পায়। ভাবি আমার সাথে খুব ফ্রি ছিলো কিন্তু কোন দিন সেক্স কিং মেয়েলি ব্যাপারে কিছু বলতো হয়তো জানতো আমার ব্যাপারে, আমার সমস্যার ব্যাপারে সবাই জানতো কিন্তু আমি জানতাম না। ভাবি আমার দিকে মিষ্টি করে তাকিয়ে হাসি দিল। তারপর পিটে হাত দিয়ে বলল উঠ তাড়াতাড়ি খাবে চল? আব্বা আম্মা বাইরে গেছে।
                             
MORE